Monday December 18, 2017

শোক দিবসে সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা

137 শোক দিবসে সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আগামী ১৫ আগস্ট দেশের সকল সরকারি হাসপাতালে সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে।

ঐ সময় রোগীরা রক্ত পরীক্ষা, ডায়াবেটিস ও রক্তচাপ পরীক্ষাসহ বিভিন্ন চিকিৎসা সেবা বিনামূল্যে পাবেন।

আজ সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কর্মসূচি গ্রহণ বিষয়ে এক সভায় এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সভায় অন্যান্যের মাঝে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সারোয়ার, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তন্দ্রা শিকদারসহ মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

শোক দিবসের দিন সকাল ১১ টায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ধানমন্ডিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে।

জাতীয় দিবস উপলক্ষে মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে মূল আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল ঐদিন বিকেল চারটায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অনুষ্ঠিত হবে। দুপুর ১২ টায় পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরে অনুষ্ঠিত হবে শোকসভা ও মিলাদ মাহফিল। নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরে শোকসভা ছাড়াও দিনব্যাপী কোরআন খতম অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং সকল জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালে সেদিন জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

শোক দিবসের দিন হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা, কর্মচারীগণ কালো ব্যাজ ধারণ করবেন। বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি পালনের জন্য মন্ত্রণালয় থেকে আহ্বান জানানোর সিদ্ধান্ত সভায় গৃহীত হয়।

এদিকে অপর এক সভায় দেশের সরকারি হাসপাতালগুলোতে অত্যাধুনিক ও স্বয়ংসম্পূর্ণ জরুরি বিভাগ স্থাপনের লক্ষ্যে ‘ইমার্জেন্সী প্রটোকল’ এবং দুই শিফট অপারেশন থিয়েটার চালু করতে দুটি নীতিমালা প্রণয়নে একটি কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমানকে প্রধান করে কমিটিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং বিভিন্ন হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সদস্য হিসেবে থাকবেন।

আজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘সরকারি হাসপাতালে ইমার্জেন্সী প্রটোকল, অপারেশন থিয়েটারে দুই শিফট চালু এবং ঝুঁকি ভাতা বন্টন নীতিমালা’ সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্বকালে তিনি নির্দেশ দেন।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বিএমএ’র সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, বিএমএ মহাসচিব অধ্যাপক ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা ও বিভিন্ন হাসপাতালের পরিচালকগণ উপস্থিত ছিলেন। সূত্র: বাসস।

Filed in: স্বাস্থ্য