Wednesday January 23, 2019

আজ প্রতীক বরাদ্দ, শুরু হচ্ছে ভোটের লড়াই

14 আজ প্রতীক বরাদ্দ, শুরু হচ্ছে ভোটের লড়াই

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘোষিত তফসিলে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল গতকাল রবিবার। আজ সোমবার প্রতীক বরাদ্দ দেবে নির্বাচন কমিশন। রিটার্নিং কর্মকর্তারা তাদের কার্যালয় থেকে প্রতীক বরাদ্দ করবেন। এ ক্ষেত্রে দল ও জোটের প্রতীক আগেই নির্ধারণ হলেও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রতীক তাদের আবেদনের ভিত্তিতে দেয়া হবে।  প্রার্থীদের মধ্যে আজ প্রতীক বরাদ্দের পরই আনুষ্ঠানিকভাবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচার শুরু হবে।

রবিবার সন্ধ্যা ৫টায় শেষ হয়েছে প্রার্থিতা প্রত্যাহারে নির্বাচন কমিশনের বেঁধে দেওয়া সময়। এখন ৩০০ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের তালিকা চূড়ান্ত করবেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। বাসসের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, এবার নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত ৩৯টি রাজনৈতিক দলই নির্বাচনে প্রার্থী দিয়েছে। নির্বাচনের তফসিল ও গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ অনুযায়ী, দল ও জোটগুলোকে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে পাঠাতে হবে, যার অনুলিপি দিতে হবে নির্বাচন কমিশনে। প্রচারের সময় আচরণবিধি ভঙ্গ করলে শাস্তির ব্যবস্থা করতে এরই মধ্যে ৬০০ জন বিচারিক হাকিম এবং এক হাজার নির্বাহী হাকিম মোতায়েন করেছে ইসি। নির্বাচনী প্রচারে কোনো রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না। সাদা-কালো পোস্টারের আকার হবে ৬০/৪৫ সেন্টিমিটার। ব্যানারের আকার হতে হবে ৩/১ মিটার (সর্বোচ্চ)। ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন পর্যন্ত তিন হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছিল। এর মধ্যে রাজনৈতিক দলগুলো থেকে মোট দুই হাজার ৫৬৭টি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ৪৯৮টি মনোনয়নপত্র জমা পড়ে। দলগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ২৬৪টি আসনে ২৮১ জন এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল—বিএনপি ২৯৫টি আসনে ৬৯৬ জন ও জাতীয় পার্টি ২১০টি আসনে ২৩৩ জন প্রার্থী দিয়েছিল। ২ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে দুই হাজার ২৭৯টি মনোনয়নপত্র বৈধ ও ৭৮৬টি বাতিল ঘোষণা করেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা। এর মধ্যে ৫৪৩টি আপিল আবেদন জমা পড়ে। গত বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার তিন দিনে ইসি এই ৫৪৩টি আপিল আবেদনের শুনানি করে। এর মধ্যে ২৪৩টি আবেদন গ্রহণ করে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। অন্যদিকে ৩০০ জনের আবেদন খারিজ করা হয়েছে। ফলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৫২২ জন। এর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী আছেন ১৮৫ জন। তবে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার শেষে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন। ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

 

Filed in: জাতীয়