Thursday December 13, 2018

তামিম-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটিং নৈপুণ্যে মাশরাফিদের সিরিজ জয়

1123 তামিম মাহমুদউল্লাহর ব্যাটিং নৈপুণ্যে মাশরাফিদের সিরিজ জয়তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটিং নৈপুণ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শেষ ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৮ রানে হারিয়ে ২২তম ওয়ানডে সিরিজ জয়ের স্বাদ নিল বাংলাদেশ। বিদেশের মাটিতে ৯ বছর পর দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজ জিতল টাইগাররা। ম্যাচ ও সিরিজ সেরা তামিম ইকবাল।

গতকাল শনিবার রাতে সেন্ট কিটসে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৮ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচ সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় মাশরাফি বাহিনী। টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে তামিমের সেঞ্চুরি মাহমুদউল্লাহর অর্ধশতক ও মাশরাফির ঝড়ে উইন্ডিজকে ৩০২ রানের বড় টার্গেট দেয় বাংলাদেশ।

ব্যাটিংয়ে নেমে তামিম-বিজয়ের ব্যাটে দেখেশুনে শুরু করে বাংলাদেশ। ৩১ বলে ১০ রানের টেস্ট সুলভ ইনিংস খেলে বিজয় ফিরে গেলে তামিমের সাথে ৮১ রানের জুটি গড়েন সাকিব। ৪৪ বলে ৩৭ রান করে সাকিব ফিরে গেলেও নিজের অর্ধশতক তুলে নেন তামিম। এরই মাঝে টাইগারদের দলীয় দেড়শো পেরুলে মাত্র ১২ রান করে ফিরে যান মুশফিক।

মুশফিক ফিরে গেলে মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে ৪৮ রান যোগ করেন তামিম। এরই মাঝে তিনি তুলে নেন সিরিজের দ্বিতীয় ও নিজের ক্যারিয়ারের ১১তম শতক। ১২৪ বলে ৭ চার ও ১ ছক্কায় ১০৩ রান করে ফিরে যান তিনি।

তামিম ফিরে গেলে সবাইকে চমকে দিয়ে সাব্বির-মোসাদ্দেকের আগে উইকেটে আসেন মাশরাফি। ব্যাটিংয়ে নেমেই ব্যাট হাতে ঝড় তুলেন তিনি৷ ৪টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৫ বলে ৩৬ রান কর ফিরে যান তিনি। এরই মাঝে নিজের ফিফটি তুলে নেন রিয়াদ। শেষ দিকে তার ঝড়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩০১ রান করে বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ অপরাজিত থাকেন ৪৯ বলে ৬৭ রানে।

উইন্ডিজের দেবেন্দ্র বিশু ও নার্স ২টি করে উইকেট নেন।

বাংলাদেশের দেয়া ৩০২ রানের বড় টার্গেটে খেলতে নেমে গেইল ও লুইজের ব্যাটে ভালো শুরু করে উইন্ডিজ। ১০ ওভারে ৫৩ রান যোগ করে এই জুটি। এরপর লুইজকে ১৩ রানে মাশরাফি ফিরে গেলে সাই হোপকে নিয়ে আবারো ৫২ রান যোগ করেন গেইল এরই মাঝে নিজের অর্ধশতক তুলে নেন গেইল। তবে এর কিছুক্ষণ পরেই ৬ চার ও ৫ ছক্কায় ৬৬ বলে ৭৩ রান করে রুবেলের বলে মিরাজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি।

এরপর আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান হেটমায়ারকে নিয়ে ৬৮ রান যোগ করেন হোপ। তবে ৩০ করে হেটমায়ার ফিরে গেলে একটু পরেই রান আউটের শিকার হয়ে ৪ রানে ফিরে যান কাইরেন পাওয়েল। কিন্তু এরপরেই উইকেটে এসে ঝড় তুলেন রোভমান । এরই মাঝে নিজের অর্ধশতক তুলে নিয়ে ৯৪ বলে ৬৪ করে ফিরে যান হোপ।

কিন্তু ব্যাট হাতে ঝড় চালিয়ে যান রোভমান পাওয়েল। মাত্র ২৭ বলে তুলে নেন নিজের অর্ধশতক। একসময় মনে হচ্ছিল আজ বুঝি উইন্ডিজকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়বেন। শেষ ৪ ওভারে উইন্ডিজের যখন জয়ের জন্য দরকার ৫২ রান তখন মাশরাফি-সাকিব-রুবেল ও মোস্তাফিজ দুর্দান্ত ৪টি ওভার করলে ১৮ রানের জয় পায় বাংলাদেশ।

শেষ ওভারে উইন্ডিজের জয়ের জন্য দরকার ছিল ২৯ রান কিন্তু তারা নিতে পারে মাত্র ১০ রান। ফলে ৬ উইকেটে ২৮৩ রানে থামে উইন্ডিজদের ইনিংস। রোভমান পাওয়েল মাত্র ৪১ বলে ৭৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

বাংলাদেশের মাশরাফি ২টি এছাড়া মিরাজ, রুবেল ও মোস্তাফিজ ১টি করে উইকেট পান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ: ৩০১/৬ (৫০)
তামিম ইকবাল ১০৩, সাকিব আল হাসান ৩৭,মাশরাফি বিন মর্তুজা ৩৬, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৬৭*।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ:- ২৮৩/৬(৫০)
গেইল ৭৩, পাওয়েল ৭১, হোপ ৭৪।

Filed in: খেলাধুলা